ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ শীর্ষক সেমিনার

বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশের লক্ষ্যে নতুন উদ্ভাবনী নিয়ে কান্ট্রি ব্র্যান্ডিং তৈরী করার লক্ষ্যে গত ৬ আগস্ট ২০১৮ তারিখ হোটেল অবকাশ, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর সম্মেলন কক্ষে Seminar On Branding Bangladesh : Tourism Development and Beyond শীর্ষক সেমিনার আয়োজন করা হয়। আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর সম্মানিত চেয়ারম্যান জনাব আখতারুজ জামান খান কবির। জনাব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন, পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মহোদয়ের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাপক এর জনাব আব্দুস সবুর মন্ডল, পরিচালক (বাণিজ্যিক ও পরিকল্পনা)। অনুষ্ঠানের মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জনাব ফারুক হাসান, ট্যুরিজম কনসালটেন্ট। আরো উপস্থিত ছিলেন ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন - টোয়াব এর পরিচালক জনাব তছলিম আমিন শোভন, টিডাব এর সাবেক সভাপতি এবং বিটিব’র গভর্ণিং বডির সদস্য জনাব জামিউল আহমেদ জামিল, ট্রিয়াব এর সভাপতি এবং বিটিব’র গর্ভর্ণিং বডির সদস্য জনাব খবির উদ্দিন আহমেদ, আটাবের উপ-মহাসচিব লায়ন নুরুল আলম শাহিন, কালের কন্ঠ পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার জনাব মাসুদ রুমী, ইত্তেফাক পত্রিকার স্পেশাল রিপোর্টার জনাব জামাল উদ্দীন, টোয়াবের সাবেক সভাপতি জনাব ফরিদুল ইসলাম, বেইজ ক্যাম্প এর এমডি জনাব তামজিদ সিদ্দিক স্পন্দন, পর্যটন বিচিত্রা’র সম্পাদক জনাব মহিউদ্দিন হেলাল, ‘এটিএন বাংলার প্রবাসে বাংলার মুখ’ এর প্রযোজক জনাব এবাদত হোসেন সোহাগ, মাই টিভি চ্যানেল এর মাই ট্যুরিজম অনুষ্ঠানের পরিচালক জনাব কাজী রহিম শাহরিয়ার এবং প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, এফবিসিসিআই এর নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন মিডিয়া ব্যক্তিত্বসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের পদস্থ কর্মকর্তা।  

অনুষ্ঠানের আলোচক জনাব ফারুক হাসান, ট্যুরিজম কনসালটেন্ট, তার বক্তব্যে বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে তুলে ধরেন। বাংলার প্রাচীন আমলের নিদর্শন, পুরাকীর্তি এবং সভ্যতাকে উর্ধ্বে তুলে বাংলাদেশের বর্তমান নেতিবাচক ইমেজকে দূর করা উচিত বলে তিনি উল্ল্যেখ করেন। বাংলার প্রাচীন ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং গৌরবময় অর্জনগুলোকে সুন্দরভাবে উপস্থাপনের মাধ্যমে বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করা যায়। তিনি বলেন বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক এবং প্রিন্ট মিডিয়াতে আমাদের ক্রমাগত জিডিপি প্রবৃদ্ধি, বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন ইত্যাদিকে তুলে ধরে বহির্বিশ্বের যে নেতিবাচক ভাবমূর্তি বাংলাদেশের রয়েছে যেমন- বন্যা, খরা, দুর্ভিক্ষ ইত্যাদি রয়েছে তা দুর করতে হবে। এছাড়া, পর্যটন মন্ত্রণালয়ের এবং বিপিসি ও বিটিবির এ২আই এর উদ্যোগে নির্মিত যে কমোন ওয়েবসাইট রয়েছে তা থেকে আলাদা করে দেশি-বিদেশি পর্যটন বান্ধব করতে হবে। তিনি তার প্রবন্ধে বাংলার ঐতিহ্য মসলিন এবং প্রাচীন সভ্যতার একটি নাতিদীর্ঘ ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, “আজ থেকে তিন হাজার বছর আগে বাংলার জনপদগুলো ইউরোপের অনেক দেশ থেকে সমৃদ্ধ ছিল। আজ আমরা পিছিয়ে পড়েছি কিন্তু তারা এগিয়ে গেছে। সুতরাং আমাদের এই উপাদানগুলোর সুন্দর উপস্থাপনের মাধ্যমে দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরে বিদেশি পর্যটকদের বাংলাদেশে আকৃষ্ট করতে পারি।    

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর সম্মানিত চেয়ারম্যান জনাব আখতারুজ জামান খান কবির প্রধান অতিথি হিসাবে উন্মুক্ত পর্ব পরিচালনা করেন। তিনি বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং এবং রি-ব্র্যান্ডিং এর প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে সকল স্টেক হোল্ডার ও পর্যটন বিশেষজ্ঞগণের মতামত গ্রহণ করেন। সেমিনারে উপস্থিত সকলে অভিমত ব্যক্ত করেন যে আমাদের এমন একটি কান্ট্রি ব্র্যান্ডিং করতে হবে যা দেশের সকল সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে এবং প্রত্যেকে তার যথাযোগ্য ব্যবহার করবে। ব্র্যান্ডিং একটি সুন্দর লোগো এবং চমৎকার ট্যাগলাইন তৈরীর পরামর্শ দেন যা হবে ইউনিক এবং একমাত্র বাংলাদেশকে বুঝাবে। এই ব্র্যান্ডিং এর মাধ্যমে বিদেশি পর্যটক, বিনিয়োগকারীগণ বাংলাদেশকে একনামে চিনবে এবং এদেশ ভিজিট করতে উৎসাহী হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত কালের কন্ঠ পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার জনাব মাসুদ রুমী এবং ইত্তেফাক পত্রিকার স্পেশাল রিপোর্টার বাংলাদেশের ট্যুরিজম উন্নয়নে দেশে-বিদেশে ব্যাপক প্রচার ও প্রচারণার প্রয়োজনীয়তা কথা তুলে ধরেন। এছাড়া, দেশের পজিটিভ ইমেজ এবং বিদেশি পর্যটকদের এদেশে আর্কষ্টকরণের লক্ষ্যে মিডিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কথাও তারা সেমিনারে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেন।    

সেমিনারে উপস্থিত ‘এটিএন বাংলার প্রবাসে বাংলার মুখ’ এর প্রযোজক জনাব এবাদত হোসেন সোহাগ বলেন, দেশের নেতিবাচক ভাবমূর্তি দূর করতে আমরা প্রত্যেকে যার যার অবস্থানে কাজ করার প্রতিজ্ঞা করেন। 

চেয়ারম্যান, বিপিসি বলেন, বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করার লক্ষ্যে বাংলাদেশের নিজস্ব ব্র্যান্ড তৈরী করে সকল প্রতিষ্ঠানকে ঐ ব্র্যান্ড ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের পরিচিতি তুলে ধরার বিপিসি’র মাধ্যমে উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।  বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর পরিচালক ও বিশেষ অতিথি জনাব আব্দুস সবুর মন্ডল বলেন, দেশের পরিচিতি আনায়নের প্রধান স্তম্ব হচ্ছে ব্য্রান্ডিং। একটি ব্র্যান্ডিং দেশের পরিচিতি বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তিনি এ ক্ষেত্রে পাহাড়পুর বিশ্ব ঐতিহ্যকে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং করার উপর মতামত প্রদান করেন। 

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর পরিচালক ও প্রধান অতিথি জনাব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন বলেন, বাংলাদেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি নিয়ে ব্রান্ডিং হলে তা সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। সর্বোপরি একটি সুন্দর ব্রান্ডিং করার বিষয়ে সকলের সহযোগিতা কামনা করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।